মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

* দাগনভূঞা উপজেলার পটভূমি

উপজেলার নামকরণ ও প্রাচীন ইতিহাসঃ দাগনভূঞা উপজেলার পূর্ব নাম গোপীগঞ্জ/গুপিগঞ্জ যা  ভূলিুয়া রাজ্যের অধীনে শাসিত হতো । ইতিহাস পর্যালোচনায় দেখা যায়, প্রখ্যাত জমিদার শ্রী অরুণ সিং বাহাদুরের স্ত্রীর নাম ছিল শ্রী গোপীদেবী যিনি স্বামীর জমিদারীর দায়িত্ব গ্রহণ করেন। সে থেকে তার নাম অনুসারে জমিদারী স্টেট  গোপীগঞ্জ নামে পরিচিতি লাভ করে। জমির আহমেদ-এর সূত্র মতে পরবর্তীতে মুঘল সম্রাট শাহাজাহানের পুত্র শাহাজাদা সুজার আমলে বারভূঁঞাদের কোন এক উপবংশের মাতুভূঁঞা ও দাগনভূঁঞা নামে দু’জন বিশিষ্ট ব্যক্তি ঐ সময় ফেনীর পশ্চিমাঞ্চলে বসতি পত্তন করে ছিলেন। মাতুভূঁঞা ও দাগনভূঁঞা এই দুই ব্যক্তির একজন মাতুভূঁঞা বর্তমানে ভূঁঞা বাড়িতে এবং অপরজন দাগনভূঁঞা দিঘীর আশে পার্শ্বে স্থায়ী বসতি স্থাপন করেন বলেন ধারনা করা হয়। যার নাম অনুসারে এলাকাটি দাগনভূঁঞা হিসেবে খ্যাতি পায়।          

 

উপজেলার নিকট অতীতের ইতিহাসঃ ১৮৭৬ সালে বৃটিশ সরকারের প্রশাসনিক প্রয়োজনে গঠিত বৃহত্তর  নোয়াখালীর অংশ হিসেবে ফেনী মহকুমার অন্তর্গত দাগনভূঁঞাকে ১৯৭৯ সালে দাগনভূঁঞা থানা হিসেবে রূপান্তর করা হয়। তম্মধ্যে ফেনী মহকুমা বিলুপ্ত করে ১৯৮৪ সালের মার্চ মাসে ফেনীকে জেলা হিসেবে রূপান্তর করা হয় এবং পরবর্তীতে ১৯৮৩ সালে দাগনভূঁঞা থানাকে দাগনভূঁঞা উপজেলায় উন্নীত করা হয়। বর্তমানে দাগনভূঞা ০১টি পৌরসভা, ০৮টি ইউনিয়ন, ১০০টি মৌজা ও ১৫২টি গ্রাম নিয়ে গঠিত। দাগনভূঞা ফেনী নদী বিধৌত জনপদ। এ উপজেলায় জন্ম নিয়েছেন জাতির অনেক শ্রেষ্ঠ সন্তান। যাদের উত্তরসূরী হতে পেরে এ উপজেলার জনগণ যেমন গর্বিত তেমনি এ জনপদও ধন্য। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন, ১৯৬৯ সালের আয়ুববিরোধী  গণঅভ্যুত্থানসহ সর্বোপরি ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধসহ জাতীয় সকল ঐতিহাসিক আন্দোলন-সংগ্রামে এখানকার বীর সন্তানেরা রেখেছেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। দাগনভূঞার কৃতি সন্তানদের মধ্যে ভাষা শহীদ আবদুস সালাম, সুফি সাধক দেওয়ান হাফেজ আবদুর রশিদ, পাকিস্তান আমলের মন্ত্রী হামিদুল হক চৌধুরী, সাংবাদিক জহুর হোসেন চৌধুরী, ড. ফেরদৌস আহমেদ কোরেশী, খ্যাতিমান শিল্পপতি আবদুল আউয়াল মিণ্টু, রাজনীতিবিদ সাবের হোসেন চৌধুরী, এয়ার ভাইস মার্শাল এজি মাহমুদ, এয়ার ভাইস মার্শাল সুলতান মাহমুদ, নির্বাচন কমিশনার আবদুর রশিদ, রাজউক চেয়াম্যান প্রকৌশলী নুরুল হুদা, খ্যাতিমান ক্রীড়াবিদ নুরুন নবী চৌধুরীসহ আরও অনেক।

ছবি